রমজান মোবারক ২০২২ সালের রমজান কত তারিখ ?

রমজান মোবারক ২০২২ সালের রমজান কত তারিখ ?

রমজান মোবারক ২০২২ সালের রমজান কত তারিখ। রমজান মাস এমন মাস যে মাসে পবিত্র কোরআন নাযিল হয়েছিল। যা আমাদের জন্য বরকতময় ও রহমত স্বরূপ। আমরা মুসলমান হিসেবে রমজান মাসকে গুরুত্বপূর্ণ মাস হিসেবে জেনে আসছি। আর আল্লাহ তা’আলা আমাদের জন্য এই মাসকে রোজা রাখার জন্য ফরজ করে দিয়েছেন। এই মাসের মধ্যে একটা রাত রয়েছে আল্লাহ তাআলা এই রাতকে কোরআনে হাজার মাস অপেক্ষা উত্তম বলেছেন। এ রাতে ইবাদত করলে হাজার মাসের চেয়েও অধিক সোয়াব পাওয়া যায়।

সামনে রমজান মাস আসতেছে আমরা যারা রমজান মাসের তারিখ জানার জন্য ইন্টারনেট সার্চ করছি তারা আমাদের এই পেজ থেকে জেনে নিতে পারেন।

রমজান

শুরুতেই আমরা জেনে নেব রমজান কি। আমরা অনেকেই রমজান সম্পর্কে জানার জন্য আগ্রহী হয়ে আছি। তাদের জন্য সংক্ষিপ্ত আকারে রমজান সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরা হলো।

রমজান আরবি শব্দ। এই মাসে বিশ্বব্যাপী মুসলমানগন রোজা পালন করে থাকেন। এটি ইসলামের তৃতীয়তম খুঁটি। প্রত্যেক প্রাপ্তবয়স্ক মুসলিমের উপর রোজা পালন করা ফরজ। তবে যারা অসুস্থ তাদের জন্য শিথিল করা হয়েছে।

রমজান মোবারক ২০২২ 

নতুন বছরের মুসলমানদের জন্য আনন্দের জোয়ার বয়ে নিয়ে আসে রমজান মোবারক। সাধারণত নতুন চাঁদ হিসেবে মুসলিমরা রমজানের শুরুতে অনুমান করতে পারে এবং চাঁদ দেখার জন্য সকলেই দিন গণনা করতে থাকে। এই মাসে সকল মুসলমান মহান রবের সন্তুষ্টির জন্য সিয়াম পালন করে থাকে। এই সময় খাওয়া এবং পান করা থেকে নিজেকে বিরত রাখে।

২০২২ সালের রমজান কত তারিখ

২০২২ রোজা কত তারিখ থেকে শুরু হবে তা আজ আমরা জেনে নেবো। মূলত রোজা চাঁদ দেখার উপর নির্ভরশীল তাই এর সঠিক দিন তারিখ নির্ধারণ করা কারো পক্ষে সম্ভব নয়। তবে অনেকেই আনুমানিক জানান দিয়ে থাকেন রোজার তারিখ গুলো। বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক রোজার তারিখ প্রকাশিত হয়েছে ৩ রা এপ্রিল ২০২২। বাংলা মাসের সময় হচ্ছে ২০ শে চৈত্র। প্রথম রোজার দিনটি হচ্ছে রবিবার। যা মুসলমানদের জন্য অত্যন্ত খুশির সংবাদ।

মাহে রমজানের সেহরি ও ইফতার

মাহে রমজানের সেহরি ও ইফতার করার আনন্দ থাকে অন্যরকম। যারা আমরা সিয়াম পালন করে থাকি তারা এই আনন্দের ফজিলত পেয়ে থাকি। প্রতিদিন ভোর হওয়ার আগেই মুসলমানরা সিয়াম এর উদ্দেশ্যে সেহরি খেয়ে থাকে। সেহরি খাওয়ার পরে আজান শুনে ফজরের নামাজের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়।

অতঃপর সারাদিন রোজা রাখার পর মাগরিবের আজানের পূর্বে ইফতারের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়। সারাদিন রোজা রাখার সমাপ্তি ঘটে থাকে ইফতারের মাধ্যমে।

রমজান মাসের তারাবির নামাজ

সারাদিন রোজা রাখার পর তারাবির সালাত আদায় করার জন্য আমরা মুসলমানগন একসাথে উপস্থিত হয়ে থাকি। যা আমাদের জন্য অত্যন্ত সওয়াবের কাজ। তারাবির নামাজ হচ্ছে মুসলমানদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নামাজ। তারাবির নামাজ সারা রমজান ব্যাপী এশার নামাজের পর পড়তে হয়।

সর্বশেষ কথাঃ 

পবিত্র মাহে রমজান বছরে একবার আসে। এর পরিপূর্ণ হক আদায় করা আমাদের জন্য অত্যন্ত জরুরী। পবিত্র মাহে রমজান মাসের আমল গুলি সকলের মাঝে পৌঁছে দেওয়া উচিত। আপনারা সকলেই আমাদের এই সাইটের বাণী গুলো সকলের মাঝে শেয়ার করতে পারেন।

আরো দেখুনঃ

tech-007

Leave a Reply

Your email address will not be published.