রসুনের উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ এবং খাওয়ার নিয়ম

রসুনের উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ এবং খাওয়ার নিয়ম

রসুনের উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ এবং খাওয়ার নিয়ম।  অনেক পূর্বে থেকেই রসুন এর ব্যবহার হয়ে আসছে। রসুন শুধু রান্নার কাজে ব্যবহার হয় না বরং স্বাস্থ্য রক্ষা ও বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছে। রসুন প্রায় পাঁচ হাজার বসর ধরে ব্যবহার হয়ে আসছে। রসুন শুধু খাদ্যের স্বাদ বারাতে নয়  এর গুনাগুন বেশ চমৎকার কাজ করে। আপনি আপনার খাদ্যের  তালিকায়  নিয়মিত রসুন রাখতে পারেন।

রসুনের উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ

 আমরা সাধারণত রসুনের মধ্যে যে সমস্ত ভিটামিন পেয়ে থাকি।

সোডিয়াম, পটাশিয়াম, ফসফরাস,

ম্যাঙ্গানিজ, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম,

দস্তা ও লোহা।

এবং ভিটামিন B1, Vitamin B2, Vitamin B4,

Vitamin B5, Vitamin B6, Vitamin B9 Vitamin C রয়েছে।

রসুন আমাদের খাদ্য তালিকায় নিয়মিত রাখতে পারি। রসুনে রয়েছে দারুন সব পুষ্টি উপাদান ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বিশেষ করে আমাদের দেহ সুস্থ রাখতে সহায়তা করে। তবে রসুন আমাদের নিয়মিত সেবন করতে হবে তাহলে আমরা এর গুনাগুন উপকার পাবো। রসুন আমাদের কি কি উপকার করে তা প্রত্যেকেরই জানা উচিত।

নিম্নে উপকারিতা দেখুন 

> স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করে।

 > রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

 > রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রসুন। 

  > দেহের শক্তি বাড়ায়। 

 > চুল ভালো রাখে।

 > ঠান্ডা কমাতে সহায়তা করে। 

 > দাঁতের যত্নে রসুন। 

চলুন তাহলে রসুনের উপকারিতা নিয়ে বিস্তারিত জানা যাক। 

স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করেঃ 

রসুন আমাদের স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে। রসুন এর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন ও পুষ্টি উপাদান। আমাদের বয়স বাড়ার সাথে সাথে স্মৃতিশক্তি কমতে থাকে। এ সময় আমাদের রক্ত চলাচল এর মাত্রা কমতে থাকে। আর রক্ত চলাচল ভালো রাখতে হলে আমাদের নিয়মিত রসুন খেতে হবে। রসুন রক্ত প্রবাবিত হয়ার মাত্রাকে বৃদ্ধি করে। ফলে আমাদের স্মৃতিশক্তি সবসময় সচল থাকে।

রসুনের উপকারিতা ও খাওয়ার নিয়ম

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়ঃ 

রসুন সম্পর্কে আমরা সাধারণত জানতে পারি, রান্নার কাজে ব্যবহার হয় বেশি। তবে এটা আমাদের জানা উচিত রসুনের মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি উপাদান ভিটামিন। যা আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কয়েক গুণ বৃদ্ধি করে। রসুন এর মধ্যে ব্যাকটেরিয়া ও ফাঙ্গাসের জীবানু নষ্ট করার উপকরন রয়েছে। যা আমাদের শরীরকে রোগমুক্ত রাখে।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রসুনঃ 

সাম্প্রতিক সময়ে রক্ত চাপ বা হাই প্রেসার আমাদের একটা কমন রোগ যা অধিকাংশ মানুষের হয়ে থাকে। তবে রসুন এই রোগের দুর্দান্ত কাজ করে। নিয়মিত আপনি রসুন সেবন করলে হাই প্রেসার বা উচ্চরক্তচাপ অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। তবে রসুন আপনাকে প্রতিদিন খাবারের সাথে অথবা সকালে ঘুম থেকে উঠে নিয়মিত সেবন করতে হবে।

রসুনের উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ এবং খাওয়ার নিয়ম

দেহের শক্তি বাড়ায়ঃ 

রসুন আমাদের দেহের শারীরিক দুর্বলতা কেউ সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে। রসুন দেহের প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির পাশাপাশি হৃদপিণ্ড  শক্তিশালী করে তোলে। রসুন পেশির শক্তির যোগান পেতে সহায়তা করে। রসুন নিয়মিত সেবন করলে শারীরিক দুর্বলতা দূর হয়ে যাবে। যা আমাদের নিত্যনতুন কাজ করতে দেহে শক্তির যোগান দেবে।

চুল ভালো রাখেঃ 

মানুষের মাথার সৌন্দর্যের মূল প্রতীক হচ্ছে চুল। চুল না থাকলে মানুষের সৌন্দর্যের পরিপূর্নতা গটে না। এ কারোণে চুল ভালো রাখার জন্য আমরা নানান পদক্ষেপ নিয়ে থাকি যা আমাদের দুশ্চিন্তাকে বাড়িয়ে দেয়। যা আমাদের উপকারের থেকে ক্ষতি হয়। চুল গজানোর বিপরীতে পড়ে যায়। কিন্তু রসুন আমাদের চুলের যত্নের জন্য চমৎকার কাজ করে যা আমরা এখনো জানিনা। তবে রসুন নিয়মিত সেবন করে যেতে হবে।

রসুনের উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ

ঠান্ডা কমাতে সহায়তা করেঃ

যখন শিতের মৌসুম আসে তখন আমাদের অনেকেরই ঠাণ্ডা, সর্দী , সমস্যা দেখা দেয়। যা আমাদের অত্যন্ত ক্ষতিকর ব্যাধি। তবে রসুন ব্যবহার করলে এই রোগ নিরাময় হয়। সরিষার তৌল এর সাথে কয়েক কোষ রসুন ভালোভাবে বেটে মিশিয়ে হালকা গরম করে মাথা অথবা গলায় লাগিয়ে রাখলে ঠাণ্ডা, সর্দী রোগ থেকে নিরাময় লাভ হয়। এছাড়াও রসুন আমাদের অনেক উপকারে আসে।

দাঁতের যত্নে রসুনঃ

রসুন আমাদের দাঁতের উপকারেও অত্যন্ত ভূমিকা পালন করে। দাঁতের মাধ্যমে আমরা খাবার চিবিয়ে খাওয়ার ফলে হলুদ ভাব চলে আসে। আর রসুনের মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল গুনাগুন ও ফাঙ্গাস প্রতিরোধ ক্ষমতা। যা আমাদের দাঁত সুস্থ সবল রাখতে সহায়তা করে। সুন্দর দাঁত আমাদের কথা বলার জন্য উৎসাহিত করে তোলে।

শেষ কথাঃ 

এই ছিলো আজকের পোস্ট রসুনের উপকারিতা ও খাওয়ার নিয়ম নিয়ে। নিয়মিত রসুন সেবন করুন এর উপকার আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন। আশা করি সকলেই বুঝতে পেরেছেন।

আরো দেখুনঃ

tech-007

Leave a Reply

Your email address will not be published.