করোনা ওমিক্রন থেকে বাঁচার উপায় ২০২২

করোনা ওমিক্রন থেকে বাঁচার উপায় ২০২২

করোনা ওমিক্রন থেকে বাঁচার উপায়। বর্তমান সময়ে সারাবিশ্বে এক আতঙ্কের নাম হচ্ছে করোনা ও ওমিক্রন। সারা বিশ্বকে আজ চমকে দিয়েছে এই মারাত্মক ভাইরাস। আর এটা এমন এক ভাইরাস যা নিজেকে প্রতিনিয়ত পরিবর্তন করছে। আর একের পর এক নতুন ভাইরাস দেখা দিচ্ছে। আর এই ভাইরাস সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি জরিপে জানানো হয়েছে এর উৎপত্তি হচ্ছে চীনের উহান শহর থেকে। গতবছরের আগস্ট মাস থেকেই শুরু হয়েছিল এই ভাইরাস।

করোনা ওমিক্রন ( Coronavirus & Omicron)

সাম্প্রতিক সময়ে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট বের হয়েছে তার নাম হচ্ছে ওমিক্রণ। ইতিমধ্যেই ওমিক্রণ ভাইরাসটি সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়ছে। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন বিশ্বের প্রায় সকল দেশেই ওমিক্রণ ভাইরাসের উপস্থিতি থাকতে পারে। পূর্বে অনেক ভাইরাস এর আগমন ঘটেছে কিন্তু করোনা ও ওমিক্রণ ভাইরাসের মত ভয়াবহতা বিশ্ব পূর্বে কখনো দেখেনি। মানুষকে পৃথিবীতে টিকে থাকার জন্য অনেক ভাইরাসের সম্মুখীন হতে হয়। তো এই ভাইরাস থেকে রক্ষা পাওয়ার কিছু উপায় রয়েছে। আপনাদের সামনে ভাইরাস থেকে রক্ষা পাওয়ার উপায় গুলি এই পেজে তুলে ধরবো।

করোনা ওমিক্রন থেকে বাঁচার উপায়

মানুষের স্বাস্থ্য রক্ষায় যেমন নিয়মিত শরীর এর যত্ন প্রয়োজন। তেমনি করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য আপনাকে কয়েকটি নিয়ম ফলো করতে হবে। করোনা ও ওমিক্রন থেকে পৃথিবীর অনেক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। দিন দিন এই মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এই ভাইরাসে আক্রান্ত কমার পূর্বেই মানুষ তার ব্যক্তিগত সুরক্ষার বিষয়টি ভুলে গেছেন। তাই এই ভাইরাস থেকে মুক্ত পাওয়ার জন্য নিয়ম মেনে চলতে হবে।

> শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা। 

 > মাক্স পরিধান করা। 

 > সাবান দিয়ে ভালোভাবে হাত ধৌত করা। 

 > পরিমাণমতো গরম পানি সেবন করা। 

 > ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খাওয়া।

করোনা ওমিক্রন থেকে বাঁচার উপায় ২০২২

শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখাঃ

আমরা সকলেই জানি, এই ভাইরাস একে অপরের মাধ্যমে বিস্তার লাভ করে। করোনা ও ওমিক্রণ ভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। যেমন অনেকেই আমরা যানবাহনের যাতায়াতের সময় শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে পারি না। হাট-বাজারে অনেক মানুষের সমাগম হয় সেখানে আমরা দূরত্ব বজায় রাখতে পারি না। আমাদের যতটা সম্ভব এ সমস্ত স্থান থেকে নিজেকে সেভ রেখে চলার চেষ্টা করবো।

মাক্স পরিধান করাঃ 

মাক্স পরিধান আমাদের নিয়মিত করা উচিত। পথে-ঘাটে যত ধুলোবালি আছে মাক্স পরিধান করলে ধুলোবালি আমাদের নাকের ভেতর প্রবেশ করতে পারে না। শীতের সময় অনেকেরই ঠান্ডা কাশি হয়ে থাকে। আর এর মাধ্যমে আমাদের অনেকেরই করোনা ও ওমিক্রণ রোগ দেখা দিতে পারে। তাই এ ভাইরাস থেকে সুরক্ষা পাওয়ার জন্য মাক্স আপনাকে বাধ্যতামূলক ব্যবহার করতে হবে।

সাবান দিয়ে ভালোভাবে হাত ধৌত করাঃ

আমাদের হাতের মধ্যে অনেক ধরনের জীবাণু লেগে থাকে। আর এই জীবাণু আমাদের মুখ অথবা নাকের ভেতোর প্রবেশ করলে আমরা অসুস্থ হয়ে পড়ি। এর জন্য আমাদের করণীয় হচ্ছে নিয়মিত সাবান অথবা হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করা। নিয়মিত আপনি ৩০ থেকে ৪০ সেকেন্ড পর্যন্ত হাত ধৌত করে নিতে পারেন।

ওমিক্রন থেকে বাঁচার উপায়

পরিমাণমতো গরম পানি সেবন করাঃ

আপনার যদি ঠান্ডা অথবা গলা ব্যাথার লক্ষণ দেখা দেয়। তাহলে আপনি নিয়মিত পরিমাণমতো গরম পানি ব্যবহার করতে পারেন। গরম পানির সাথে পরিমাণমতো লবণ অথবা লেবু নিয়ে নিতে পারেন। তবে একটা বিষয় মনে রাখবেন, উপরোক্ত নিয়মগুলি মানার এবং শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার চেষ্টা করবেন।

ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খাওয়াঃ 

শরীরকে সুস্থ রাখার জন্য আপনাকে ভালো মানের খাবার খেতে হবে। আমাদের সবারই জানা ভিটামিন সি’ যুক্ত খাবার করোনার সংক্রমণ কমাতে সহায়তা করে। ভিটামিনযুক্ত খাবার শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। নিয়মিত আপনাকে ভিটামিন সি যুক্ত খাবার মেনুতে রাখতে হবে। বিশেষ করে টক জাতীয় খাবার খেতে হবে।

শেষ কথাঃ 

সর্বোপরি আমাদের সকলেরই সচেতন থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এবং সকলের কল্যাণ কামোনার জন্য দোয়া করা। আমরা সকলেই এই ভয়াবহ করোনা ওমিক্রন ভাইরাস থেকে মুক্তি পাই। সামনের দিনগুলো আমার আপনার ভালো কাটুক।

আরো দেখুনঃ

 

tech-007

Leave a Reply

Your email address will not be published.